Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গনশিক্ষা কার্য়ক্রম শীর্ষক প্রকল্পের কার্যবলী ও সেবাদান প্রক্রিয়া ।

সিটিজেন চার্টার

বাংলাদেশের হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সংখ্যা প্রায় এক কোটি চল্লি­শ লক্ষ যা দেশের মোট জনসংখ্যার ১১%। এ বিরাট হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য বাংলাদেশে প্রায় ২৫,০০০ মন্দির রয়েছে। এ জনগোষ্ঠীকে বিবেচ্য প্রকল্পের আওতায় এনে নিম্নোক্ত উদ্দেশ্য সমূহ বাস্তবায়নের পরিকল্পনা গ্রহন করা হয়েছে।

প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্যঃ

 

  1. ১।নিরক্ষরতা দূরীকরণ ও স্বাক্ষরতা কার্যক্রমের অগ্রণী ভূমিকা পালন।
  2. ২।প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গমনোপযোগী শিক্ষার্থী তৈরী।
  3. ৩।শিক্ষার্থীদের জন্য বিনা বেতন ও বিনা মূল্যে সকল পাঠ্যপুস্তক ও শিক্ষা উপকরণ সরবরাহ।
  4. ৪।সেবাইত ও শিক্ষিত বেকার যুবকদের জন্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা।
  5. ৫।কার্যক্রমের সুষ্ঠ বাস্তবায়ন ও তদারকির জন্য মাঠ পর্যায়ে রয়েছে কেন্দ্র, উপজেলা ও জেলা মনিটরিং/ উপদেষ্টা  কমিটি এবং কেন্দ্রীয় পর্যায়ে রয়েছে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি ও আন্তঃ মন্ত্রণালয় ষ্টিয়ারিং কমিটি।
  6. ৬।প্রকল্পের ১ম পর্যায়ে দেশের ৪৬০টি উপজেলায় মন্দির ভিত্তিক পাঠাগার স্থাপন ।
  7. ৭।৬৪টি জেলা সদরে একটি করে মন্দির ভিত্তিক মডেল পাঠাগার স্থাপন।  

 

প্রকল্পের আওতায় বাস্তবায়িত উল্লে­খযোগ্য কর্মসুচীর মধ্যে রয়েছে দেশের প্রতিটি উপজেলায় একটি করে মন্দির ভিত্তিক পাঠাগার স্থাপন, প্রতি জেলায় একটি করে মডেল পাঠাগার স্থাপন করা, যা প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ে বাস্তবায়িত হয়েছে।

প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যক্রম বর্তমানে ৪৮টি জেলা/আঞ্চলিক কার্যালয় স্থাপন করা হয়। জেলা কার্যালয়ের মাধ্যমে ইতোমধ্যে সারাদেশে সকল উপজেলায় মোট ৫২৫০টি শিক্ষাকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। এ সকল কেন্দ্রের প্রাক- প্রাথমিক স্তরের প্রতিটিতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৩০জন এবং বয়স্ক- শিক্ষাস্তরে প্রতিটিতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৫ জন। এ সকল শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক, শ্লে­ট, চক ও অন্যান্য শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে। প্রতিটি শিক্ষা কেন্দ্রই স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায় তাঁদের মন্দির বিনা ভাড়ায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ মূলক (Participatory Basis) ভাবে প্রদান করেছেন। শিক্ষা কেন্দ্রে পাঠদানের জন্য মন্দিরের পুরোহিত অথবা স্থানীয় শিক্ষিত বেকার যুবদের মধ্যে হতে নূন্যতম সম্মানীতে শিক্ষক নিয়োগ করা হয়েছে।

 

নিম্নে মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম সম্পর্কিত তথ্য ঃ                                                      

 

প্রকল্পের নাম                         ঃ মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম।

উদ্যোগী মন্ত্রণালয়                  ঃ ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

বাস্তবায়নকারী সংস্থা              ঃ হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট।

জেলা কার্লয়ের জনবল            ঃ ৩ জন- ১। সহকারী পরিচালক ২। কম্পিউটার অপারেটর ৩। ফিল্ড সুপারভাইজার

 

 

শিক্ষাস্তর                                                                                                                                              

ক) প্রাক-প্রাথমিক স্তর

কেন্দ্রের অবস্থান              ঃ মন্দির/মন্দির সংলগ্ন ঘর।

শিক্ষক                           ঃ মন্দিরের সেবাইত/ হিন্দু ধর্ম পড়াতে সক্ষম সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিত

  (এস,এস,সি পাশ) ব্যক্তি।

প্রতি কেন্দ্রের শিক্ষার্থীর সংখ্যাঃ ৩০ জন।

 

 

 

খ) বয়স্ক স্তর

কেন্দ্রের অবস্থান              ঃ মন্দির/মন্দির সংলগ্ন ঘর।

শিক্ষক           ঃ মন্দিরের সেবাইত/ হিন্দু ধর্ম পড়াতে সক্ষম সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিত (এস,এস,সি

  পাশ) ব্যক্তি।

প্রতি কেন্দ্রের শিক্ষার্থীর সংখ্যাঃ ২৫ জন।

 

পাঠ্য পুস্তক সমুহঃ                                                                                                                                

ক) প্রাক-প্রাথমিক স্তরের জন্য                                     খ) বয়স্ক স্তরের জন্য

১। আমার প্রথম পড়া (বাংলা)                                           ১। আমাদের পড়ালেখা (বাংলা)

২। আমরা গনিত শিখি (গনিত)                             ২। আসুন হিসাব শিখি (গণিত)

৩।সনতন ধর্ম শিক্ষা (ধর্ম)                                                ৩। সনাতন ধর্ম শিক্ষা (ধর্ম)

৪। আমরা পড়ি আমরা শিখি       (ব্যবহারিক তথ্য বার্তা)

 

 

 

 

ক্রমিক

নং

কার্যাবলি

সেবা গ্রহনকারী

সময়সীমা

কর্মপদ্ধতি

মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গনশিক্ষা

কার্যক্রম

অএ জেলার হিন্দু জনসাধারন

চলমান

সহকারী পরিচালকের কার্যালয়ের মাধ্যমে প্রযোজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হয় ।

মানব সম্পদ উন্নয়নে হিন্দু ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ/পুরোহিত/সেবাহত প্রশিক্ষণ

হিন্দু নেতৃবৃন্দ/ পুরোহিত/ সেবাহত

চলমান

কর্মসূচি ভিত্তিক । সহকারী পরিচালকের কার্যালয়ের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হয় ।

মন্ত্রনালয় কর্তৃক সময় প্রদত্ত অন্যান্য কার্যাবলী

সাধারন জনগন

কার্যক্রমের  প্রকৃতি অনুসারে সময়সীমা নির্ধারিত হয় ।

বিষয়ের প্রকৃতির উপর নির্ভরশীল ।